পাতা

কী সেবা কীভাবে পাবেন

কলাপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে অবস্থিত ওয়ান-স্টপ ক্রাইসিস সেলের সেবা প্রদান পদ্ধতি-

 

(ক) উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রদেয় স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিতকরন।

(খ) সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠান হতে নির্যাতনের শিকার নারী ও শিশুদের সেবা প্রাপ্তিতে সহায়তাকরন।

 সেবার উদ্দেশ্য-

১.দেশব্যাপী নির্যাতনের শিকার নারী ও শিশুদের সেবা প্রাপ্তি সহজলভ্য করা

২.সংশ্লিষ্ঠ জেলা সদর হাসপাতাল এবং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নারী ও শিশু বান্ধব পরিবেশ তৈরী করা

৩.নির্যাতনের শিকার নারী ও শিশুদের সেবা প্রাপ্তিতে সরকারি ও বেসরকারি সংস্থার কার্য্যক্রমের মধ্যে নিন্মোক্ত সমন্বয় সৃষ্টি করা।

*জেলা ও উপজেলা পযায়ে নারী নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটিতে নির্যাতনের তথ্য আদান প্রদান

*জাতীয় আইন প্রদান সহায়তা সংস্থার সাথে সমন্বয় সাধন;

*পারিবারিক আদালতে গৃহীত মামলার ফলোআপ

*নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের মামলার ফলোআপ।

৪.নির্যাতনের শিকার নারী ও শিশুদের জন্য কেন্দ্রীয় এবং তৃণমূল পর্যায়ে বিরাজমান সেবা সমূহের মধ্যে সংযোগ স্থাপন করা।

ওয়ান-স্টপ ক্রাইসিস সেলের কাযক্রম-

১.নির্যাতনের শিকার নারী ও শিশুদের প্রয়োজনীয় পরামর্শ  প্রদান ও হাসপাতালে বিদ্যমান সেবা প্রাপ্তিতে সহযোগিতা এবং সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠান কর্তৃক প্রদেয় সহায়তার সাথে সমন্বয় সাধন করা।

২.ভিকটিম ও তার পরিবারের নির্যাতনের কারনে সৃষ্ঠ মানসিক সমস্যা থেকে উত্তরনের লক্ষ্যে মনোসামাজিক কাউন্সেলিং এর ব্যাবস্থা করা।

৩.দৈহিক ও যৌন নির্যাতনের শিকার ভিকটিমকে দ্রুততম সময়ে হাসপাতালে বিদ্যমান চিকিৎসা সেবা পাওয়ার জন্য উদ্যোগ গ্রহন করা।

৪.দৈহিক,যৌন ও মানসিক নির্যাতন প্রতিরোধে উচ্চতর আদালতের রায় ও নির্দেশনাসমূহ সংশ্লিষ্ঠ সকলকে অবহিত করা।

৫.সরকারি ও বেসরকারি উদ্যোগে গৃহীত বাল্য-বিবাহ প্রতিরোধ ও যৌতুক বিরোধী বিভিন্ন কার্য্যক্রমে সক্রিয় অংশগ্রহন করা।

৬.সেলে আগত ভিকটিমদের অবস্থা পর্যালোচনা করে স্থানীয় পর্যায়ে বিদ্যমান সেবা প্রাপ্তিতে সহায়তা এবং প্রচলিত বিধি বিধানের আলোকে সুনির্দিষ্ঠ প্রতিকারের ধারনা প্রদান করা।

৭.ভিকটিম ও তার পরিবারের চাহিদা অনুযায়ী সরকারি ও বেসরকারি সংস্থা ও সংগঠনের সাথে সমন্বয়ের মাধ্যমে আইনী সহায়তার ব্যাবস্থা করা।

৮.নির্যাতন বিরোধী কার্য্যক্রমের সাথে সংশ্লিষ্ঠ সরকারি ও বেসরকারি নেটওয়ার্কের সাথে কার্যকর যোগাযোগ স্থাপন করা।

৯.স্কুল,কলেজ,মাদ্রাসাসহ অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক ও ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে নির্যাতন বিরোধী কার্য্যক্রমের প্রচার এবং সামাজিক আন্দোলনে তাদের সম্পৃক্ত করার জন্য উদ্যোগ গ্রহন করা।

১০.বিভাগীয় পর্যাযে সরকারি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে অবস্থিত ওয়ান-স্টপ ক্রাইসিস সেন্টার এবং কমিউনিটি ক্লিনিকের সাথে যোগসূত্র স্থাপন করা।

১১.বিভিন্ন সভা,কর্মশালা,সেমিনার এবং অন্যান্য অনুষ্ঠানে যোগদানের মাধ্যমে তৃনমূল পর্যায়ে সেলের কার্য্যক্রম সম্পর্কে জনগনকে সচেতন করা।

১২.স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের স্বাস্থ্য সহকারি,পরিবার কল্যান কর্মী,পরিবার পরিকল্পনা পরিদর্শকের মাধ্যমে নির্যাতন বিরোধী সেবা সম্পর্কে প্রয়োজনীয় তথ্য প্রতিটি পরিবারকে জানানো।         


Share with :

Facebook Twitter